সেলফোনে বাংলা পড়তে ও লিখতে

Fahim Uddinবাংলাদেশে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর অর্ধেকের বেশি মুঠোফোনে বা সেলফোনে ইন্টারনেট ব্যবহার করেন। এদের মধ্যে প্রায় নব্বই ভাগই মুঠোফোনে ফন্টস সমস্যার কারণে বাংলায় কিছু পড়তে পারেন না, লিখতে পারেন না। ফলে সার্বক্ষণিক নেটের সঙ্গে যুক্ত থাকা সত্ত্বেও অনলাইন কোনো বাংলা সাইট বা নিউজ পেপার পড়তে পারেন না। পান না কোনো আপডেট নিউজও। তাই সেলফোনে ওয়েবসাইটে বাংলা পড়তে সহজ উপায় নিচে দেয়া হলো।

  1. প্রথমে মোবাইলে অপেরামিনি (www.operamini.com) ডাউনলোড করে নিন। যাদের মোবাইলে অপেরা আছে তারা নতুন করে ডাউনলোড করার দরকার নেই।

  2. অপেরার ধফফত্বংং বক্সে গিয়ে পুরো ঘরটি পষবধত্ করে তাতে লিখুন Opera:config। এরপর OK ev Go to দিন।

  3. একটি page এলে তার নিচের দিকে নামুন। একেবারে নিচে টংব bitmap image in complex fonts লেখা আছে। তার ডান পাশে আছে ঘঙ লেখা, আপনি ণবং করে দিন।

  4. চধমবটির আরেকটু নিচে নামলে ঝধাব লেখা দেখবেন। এবার ঝধাব দিয়ে বের হয়ে আসুন।

  5. এবার অপেরার অ্যাড্রেস বক্সে গিয়ে http://www.amardeshonline.com লিখে go to দিন। দেখবেন এবার কোন ঝামেলা ছাড়াই বাংলা দেখা যাচ্ছে।

যাদের মোবাইলে বাংলা দেখা যায় কিন্তু লিখা যায় না, তারা পানিনি বাংলা নামে একটি অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার করে খুব সহজে মোবাইলে বাংলা লিখতে পারেন। http://www.getjar.com থেকে সফটওয়্যারটি ডাউনলোড করতে পারেন। এর মাধ্যমে বাংলায় এসএমএস দিতে পারবেন। ফেসবুক বা টুইটারে দেয়া যাবে বাংলায় স্ট্যাটাস।
যা যা করতে হবে

  1. পানিনি বাংলা নামের অ্যাপ্লিকেশনটি অন করলেই স্ক্রিনে বাংলা কি-প্যাড দেখাবে। আপনার কাঙ্ক্ষিত অক্ষরটি না থাকলে নেক্সট বাটনে ক্লিক করুন।

  2. মেসেজ লেখা শেষ হলে ‘অপশনে’ গিয়ে ‘পাঠান/দেখুন’ যান।

  3. লেখাটি ফেসবুকে বা অন্য কোথাও ব্যবহার করতে পুরো লেখাটি ‘গধত্শ অষষ’ দিয়ে ‘ঈড়ঢ়ু’ করে নিন। এরপর অ্যাপ্লিকেশন থেকে বের হয়ে গেলেও লেখাটি ফেসবুক বা অন্য কোথাও যেখানে দরকার সেখানে এডিট করার সময় অপশনে গিয়ে ‘ঢ়ধংঃব’ করে দিলে আপনার লেখাটি পেয়ে যাবেন।

  4. যুক্তাক্ষর ব্যবহারের জন্য কম্পিউটারের মতোই ভেঙে লিখতে হবে। যেমন : ক্ত= ক+হসন্ত চিহ্ন+ত, ল্ল=ল+হসন্ত চিহ্ন+ল, ‘য’ ফলা লিখতে হসন্ত চিহ্ন দিয়ে তারপর ‘য’ লিখুন। একইভাবে (র্ ) রেফ লিখতে ( ) হসন্ত চিহ্ন দিয়ে র লিখতে হবে, এভাবেই যুক্তাক্ষর লিখতে হবে।

পানিনি অ্যাপ্লিকেশনটি না পাওয়া গেলে এই লিঙ্কটি থেকে সরাসরি ডাউনলোড করতে পারেন।
http://www.getjar.com/mobile/70949/paninibengali-for-nokia-2700/?ref=0&lvt=1315397059&sid=6wrjj208c8pq09vr&c=4b0hp8fvpmvzc6wb16&f=575275008?=enbiI‡q‡Z অনুষ্ঠিত হলো ইউরোপ
বাংলাদেশ টেকনোলজি সামিট
বাংলাদেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাতে ইউরোপীয় বিনিয়োগ আকৃষ্ট করতে শুরু হয়েছে ‘ইউরোপ বাংলাদেশ টেকনোলজি সামিট ২০১৪’। গত ২০ মার্চ নরওয়ের অসলোতে অনুষ্ঠিত সামিটে অনুষ্ঠানে মূল বক্তব্য উপস্থাপন করেন প্রধানমন্ত্রীর তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজিব ওয়াজেদ জয়। এছাড়াও এতে বক্তব্য রাখেন ডাক, টেলিযোগাযোগ এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলক এমপি, বেসিস সভাপতি শামীম আহসান, বেসিস যুগ্ম মহাসচিব এম রাশিদুল হাসান, টেলিনর এএসএ, বাংলাদেশের চিফ রিপ্রেজেন্টেটিভ অফিসার হ্যানস মার্টিন হেনরিকসন, একসেনসার নরওয়ের স্টেইন এরিক মোই, নরওয়ের আইটি খাতের পক্ষ থেকে মার্টিন টপটেব, লুবাবা ফারিন তানিশা প্রমূখ। এতে নরওয়ের ২৫টির বেশি আইটি কোম্পানির উর্ধতন কর্মকর্তা, তথ্যপ্রযুক্তি খাতের নীতি নির্ধারকবৃন্দ, তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবসায়ী এবং ১২টি বেসিস সদস্য কোম্পানির প্রতিনিধিবৃন্দ অংশগ্রহণ করেন।
সজিব এ ওয়াজেদ তার বক্তব্যে জাতীয় তথ্যপ্রযুক্তি নীতিমালা ২০০৯ সংশোধিত ২০১২) বাস্তবায়ন এবং সংশ্লিষ্ট সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় ২০২১ সালের মধ্যে ডিজিটাল বাংলাদেশের লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করা সম্ভব বলে উল্লেখ করেন। তিনি আরো বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়নের মাধ্যমে বাংলাদেশ সরকার গত পাঁচ বছরে রপ্তানি আয় ২৪ মিলিয়ন ডলার থেকে ২০০ মিলিয়ন ডলারে উন্নিত করেছে এবং আমরা বিশ্বাস করি যে আগামী ৫ বছরে রপ্তানি আয় ১ বিলিয়ন ডলারে উন্নিত করা সম্ভব এবং এ লক্ষ্যকে বাস্তবায়নের লক্ষ্যে ইন্টারনেট সংযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি অবকাঠামো উন্নয়ন, তথ্যপ্রযুক্তি নির্ভর নাগরিক সুবিধা এবং তথ্যপ্রযুক্তি নির্ভর শিক্ষা ব্যবস্থা চালু করেছে। তিনি এ সময় আরও বলেন, দেশের সর্বত্র ইন্টারনেট সংযোগ সহজলভ্য করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। তথ্য প্রযুক্তি খাতে সরকার আয়কর মওকুফসহ বিদেশি বিনিয়োগকারীদের জন্য প্রয়োজনীয় সকল সুবিধা প্রদান করছে। আইসিটি ইন্ড্রাষ্ট্রির উন্নয়নে সম্প্রতি বাংলাদেশ সরকার করপোরেট শুল্ক মওকুফ, কম্পিউটার হার্ডওয়্যার শুল্ক মওকুফ এবং পরিকল্পিত ১৩,৪৬,৮২৭ বর্গ মিটার হাই-টেক পার্ক বাস্তবায়নের কাজ ইতিমধ্যেই শুরু হয়েছে।
বেসিস সভাপতি শামীম আহসান বলেন, দেশের তথ্য প্রযুক্তি খাতে বিদেশি বিনিয়োগ বিশেষত ইউরোপীয় প্রযুক্তি ব্যবসায়ীদের উত্সাহিত করতে এ ধরনের সামিট ইতিবাচক ভূমিকা রাখবে বলে উল্লেখ করেন। তথ্যপ্রযুক্তি খাতে বেসিস সরকারি ও বেসরকারি সংশ্লিষ্ট সকল সংস্থা ও প্রতিষ্ঠানের সহযোগিতায় আগামী পাঁচ বছরে ১ বিলিয়ন মার্কিন ডলার রপ্তানী লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে সক্ষম হবে বলেও আশাবাদ ব্যক্ত করেন। এ সময় তিনি আরো বলেন যে, বাংলাদেশের আইটি ইন্ড্রাষ্ট্রি খুব দ্রুততার সাথে সারা বিশ্বের মধ্যে আইটি হাব হবে এবং আরো বিশ্বাস করেন যে বাংলাদেশের ১০০ মিলিয়ন যুবক এ লড়্গ্যকে বাসত্মবায়ন করবে এবং আগামী ১৫ বছরের মধ্যে বাংলাদেশ একটি মধ্যম আয়ের দেশ হবে। বেসিস আমেরিকা ও ইউরোপে দেশের প্রযুক্তি খাতকে তুলে ধরার উদ্যোগ নিয়েছে। তারই ধারাবাহিকতায় এ সামিট অনুষ্ঠিত হচ্ছে। তিনি সামিট আয়োজনে সহযোগী সকল প্রতিষ্ঠানকে ধন্যবাদ জানান।
ডাক, টেলিযোগাযোগ এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলক এমপি আইসিটিকে দেশের আর্থ সামাজিক উন্নয়নে প্রধান সঞ্চালক বলে সংজ্ঞায়িত করেন। স্থানীয় বিনিয়োগকারীদের মতো বিদেশি বিনিয়োগকারীদেরও একই রকম সুবিধা দেওয়া হচ্ছে। বিশেষত: ওয়ার্কিং ক্যাপিটাল, বৈদেশিক মুদ্রা বিনিময়, বিনিয়োগ বোর্ডের অনুমতিসহ বৈদেশিক ঋণ এবং শুল্ক মওকুফ সুবিধা দেওয়া হচ্ছে।
উল্লেখ্য, বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার এন্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস (বেসিস) এর উদ্যোগে এবং রপ্তানী উন্নয়ন ব্যুরো, অগ্রণী ব্যাংক লিমিটেড এবং গ্রামীন ফোনের সহযোগিতায় অনুষ্ঠেয় ‘ইউরোপ-বাংলাদেশ টেকনোলজি সামিট ২০১৪’ এ সহ-আয়োজক হিসেবে রয়েছে টেলিনর, ইনোভেশন নরওয়ে, ড্যানিশ ফেডারেশন অব এসএমই (ডিএফএসএমই) এবং সিবিআই, নেদারল্যান্ড। এছাড়াও এ আয়োজনের কৌশলগত সহযোগী হিসেবে রয়েছে ঢাকাস্থ ডেনমার্ক, নরওয়েএবং নেদারল্যান্ড দূতাবাস।

Collect From: The Daily Amardesh

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s